Home Blog Post এসএসসি পাশের পর যারা সরকারি আইএইচটি/ম্যাটস এ ভর্তি হতে চান তাদের জন্য...

এসএসসি পাশের পর যারা সরকারি আইএইচটি/ম্যাটস এ ভর্তি হতে চান তাদের জন্য কিছু কথাঃ

0
1804
এসএসসি পাশের পর যারা সরকারি আইএইচটি/ম্যাটস এ ভর্তি হতে চান তাদের জন্য কিছু কথাঃ

-এসএসসি পাশের পর যারা সরকারি আইএইচটি/ম্যাটস এ ভর্তি হতে চান তাদের জন্য কিছু কথাঃ

দেশে ১৫ টি+ সরকারি ইন্সটিটিউট অব হেলথ্ টেকনোলজি (আইএইচটি) এবং ০৯ টি + মেডিকেল এসিস্ট্যান্ট ট্রেনিং স্কুল রয়েছে। যারা আইএইচটি থেকে ডিপ্লোমা কমপ্লিট করে তাদের পদবী মেডিকেল টেকনোলজিস্ট এবং যারা ম্যাটস থেকে ডিপ্লোমা কমপ্লিট করে তাদের ডিগ্রি ডিএমএফ।

আইএইচটিতে বিভিন্ন অনুষদ রয়েছে
★ল্যাবরেটরি,
★ রেডিওলজি,
★ ফার্মেসী
★ফিজিওথেরাপি,
★ডেন্টাল,
★রেডিওথেরাপি,
★ ওটিএ

আইএইচটিতে পড়াশোনা করে যে ডিগ্রি অর্জন করা যায় তার নাম Diploma in Medical Technology এর পর যে বিষয়ে ডিগ্রি অর্জন করবে সেটা () এর ভিতর লিখতে হয় উদাহরণস্বরূপ Diploma in Medical Technology (Laboratory)৷

★ অপরদিকে ম্যাটসে অর্জিত ডিগ্রির নাম Diploma in Medical Faculty Faculty (DMF).

এছাড়াও ডিপ্লোমা ডিগ্রি কমপ্লিট করার পর বিভিন্ন বিষয়ের ওপর গ্রাজুয়েশন, পোস্ট গ্রাজুয়েশন ডিগ্রি অর্জন করা যায় যেমনঃ Bsc in Medical Technology (Laboratory), Bsc in Physiotherapy ইত্যাদি।

যারা এসএসসি তে জীববিজ্ঞান বিষয় সহ বিজ্ঞান বিভাগ থেকে পাশ করবে তারাই কেবলমাত্র ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে আইএইচটি/ম্যাটস এ ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাবে। আইএইচটি/ম্যাটস এ পরিচালিত কোর্সগুলো বাংলাদেশ রাষ্ট্রীয় চিকিৎসা অনুষদ এর অধিভুক্ত।

আইএইচটি/ম্যাটস এ ভর্তি পরীক্ষার জন্য অনলাইন ফর্ম পূরনের সময় একটি বিষয় অনেকেরই ভুল হয়। যেহেতু আইএইচটি/ম্যাটস দুটোই একসাথে চয়েস দেওয়া যায়, তাই কেউ যদি আইএইচটি ভর্তি হতে ইচ্ছুক হয় তাহলে প্রথম চয়েস আইএইচটি দিতে হবে পাশাপাশি নির্দিষ্ট একটি সাবজেক্ট বেছে নিতে হবে। অপরদিকে ম্যাটসে ভর্তি হতে চাইলে প্রথম চয়েস ম্যাটস দিতে হবে। মেধা অনুসারে পরবর্তী যেকোনো একটিতে নির্বাচিত হবে।

ভর্তি পরীক্ষার জন্য যা যা পড়তে হবেঃ
প্রতি বছর জুন মাসের মধ্যে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হয়।
( #এবারজানুয়ারিমাসেভর্তিবিজ্ঞপ্তিপ্রকাশকরা_হয়েছে)
সাধারণত এসএসসি সিলেবাস থেকেই ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্ন হয়। তাই এখন থেকে এসএসসি বাংলা,ইংরেজি, ফিজিক্স, কেমিস্ট্রি,ম্যাথ,বায়োলজি এবং সাধারণ জ্ঞান নিয়মিত পড়তে হবে। বইগুলো সুন্দরভাবে কয়েকবার রিডিং পড়ে। মূল মূল টপিকগুলো দাগাতে হবে পাশাপাশি গাইড বইয়ের নৈব্যত্তিক দেখতে হবে। মূল বইয়ের প্রতি বেশি জোর দিতে হবে। কেউ চাইলে বাজার থেকে ভর্তি গাইড কিনেও প্রস্তুতি নিতে পারেন৷

ভর্তি পরীক্ষার বিষয়ভিত্তিক মানবন্টনঃ

বাংলাঃ ১৫
ইংরেজিঃ ১৫
গণিতঃ ১৫
ফিজিক্সঃ ১৫
কেমিস্ট্রিঃ ১৫
জীববিজ্ঞানঃ ১৫
সাধারণ জ্ঞানঃ ১০

ভর্তি পরীক্ষায় কোন নেগেটিভ মার্ক নেই।

NO COMMENTS